আজ : ০৯:৫৯, অক্টোবর ২২ , ২০২০, ৭ কার্তিক, ১৪২৭
শিরোনাম :

প্রফেসর অহিদুর রব এর নতুন গ্রন্থ 'কুরআন হাদিসের দোয়া ও আল্লাহর সিফাতি নামসমুহ'


আপডেট:০৪:৩১, অগাস্ট ১৫ , ২০২০
photo
বায়জীদ মাহমুদ ফয়সল ◆ লন্ডনবিডিনিউজ২৪ঃ প্রফেসর অহিদুর রব একজন বরেণ্য শিক্ষাবিদ, লেখক ও সংগঠক। দীর্ঘদিন থেকে তিনি ধর্ম, শিক্ষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ক বিচিত্রধর্মী প্রবন্ধ, নিবন্ধ, পত্রপত্রিকা ও বিভিন্ন সাময়িকীতে লিখে যাচ্ছেন। তাঁর জন্ম সিলেট শহরতলির নিয়ামতপুরের একটি সম্ভ্রান্ত পরিবারে। তাঁর পিতা মোস্তফা আহমদ আব্দুল জব্বার, মাতা আনোয়ারা বেগম চৌধুরী। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে বিএসএস অনার্স ও এমএসএস ডিগ্রি অর্জনের পর ১৯৮৯ খ্রিস্টাব্দে বেসরকারি কলেজে এবং ১৯৯৩ খ্রিস্টাব্দে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারে যোগদান করেন। বিভিন্ন কলেজে ৩০ বছর অধ্যাপনার অভিজ্ঞতায় সমৃদ্ধ লেখক। ৮০’ দশকের মাঝামাঝি থেকে ৯০’ দশক পর্যন্ত জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় ‘অহিদ বিন জব্বার’ নামে লিখেছেন নিয়মিত। তাঁর প্রবন্ধ নিবন্ধে তুলে ধরেছেন সমাজের অন্যায়, অনিয়ম ও প্রতিবন্ধকতাকে। এছাড়াও তাঁর লেখালেখি ছড়িয়ে আছে বিভিন্ন দৈনিক, সাপ্তাহিক, স্মারক, সাময়িকী ও কলেজ বার্ষিকীতে। প্রফেসর অহিদুর রব ছাত্রজীবনের শেষ দিক থেকে সাংবাদিকতার (১৯৮৯-১৯৯৩ খ্রিস্টাব্দ) সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। ওই সময় তিনি সিলেট প্রেসকাবের সদস্য এবং ঢাকা থেকে মুদ্রিত সাপ্তাহিক ‘জালালাবাদ’ এর সহকারী সম্পাদক-এর দায়িত্ব পালন করেন। পারিবারিক জীবনে তাঁর স্ত্রী সুমনা আক্তার বেসরকারি কলেজে অধ্যাপনা করছেন। তাঁদের দুই সন্তান--আহমাদ নাহিয়ান ও আহমাদ লিসান শিক্ষার্থী। ‘কুরআন হাদিসের দোয়া ও আল্লাহর সিফাতি নামসমূহ’ প্রফেসর অহিদুর রব-এর একটি মূল্যবান সংকলিত গ্রন্থ। এই গ্রন্থের শুরুতে তিনি বুঝে বুঝে দোয়া করার কথা সুন্দরভাবে আলোচনা করেছেন। এরপর আল-কুরআনে রাব্বানা মানে ‘আল্লাহ’, ‘পালনকর্তা’, ‘রব’ এ বিষয়ে চল্লিশটি রাব্বানা দোয়া তুলে ধরেছেন। এছাড়া কুরআন ও হাদিসের নির্বাচিত দোয়া এবং দৈনন্দিন জীবনের মৌলিক এবং অত্যাবশ্যকীয় মাসনুন দোয়াসমূহ সহজ সাবলীল ভাষায় লেখক উপস্থাপন করেছেন এবং শেষদিকে আল্লাহর সিফাতি বা গুণবাচক নিরানব্বইটি নাম অর্থসহ উল্লেখ করেছেন। দোয়ার তাৎপর্য হলো ইহ ও পারলৌকিক বিভিন্ন প্রয়োজনে আল্লাহ তায়া’লার শরণাপন্ন হওয়া। দোয়া একটি গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত। এর মাধ্যমে আল্লাহর সঙ্গে বান্দার বিশেষ যোগসূত্র তৈরি হয়। আল্লাহর প্রতি বান্দার আনুগত্য ও তার প্রতি বিশ্বাস প্রকাশ পায়। আল্লাহর প্রতি আস্থাশীলতা এবং তাঁর মহান শক্তির উপর নির্ভরতার প্রত্যয় বান্দার অন্তরে দৃঢ়ভাবে স্থাপিত হয়। সারকথা হলো, দোয়া এমন একটি ইবাদত যা একদিকে বান্দার দীনতা, হীনতা, অমতা ও বিনয়ের প্রকাশ ঘটায়, অপরদিকে আল্লাহর বড়ত্ব, মহত্ব, সর্বব্যাপী মতা ও দয়া-মায়ার প্রতি সুগভীর বিশ্বাস গড়ে তুলে। তাই আমাদের উচিত বেশি বেশি দোয়া করা। আমাদের কাজ হবে প্রার্থনা করতে থাকা। দেওয়া না দেওয়ার এখতিয়ার একমাত্র আল্লাহর। তাই বাহ্যিকভাবে কিছু না পেলেও, দোয়া কখনো ছেড়ে দেওয়া উচিত নয়। কেননা দোয়ার মাধ্যমে আমাদের ইবাদত ও সওয়াব অর্জন হয়, যা আখিরাতের বিশেষ পাথেয় হবে। আশা করি সম্মানিত পাঠকগণ এই গ্রন্থটি পাঠ করে উপকৃত হবেন। লেখকঃ প্রকাশক ও সংগঠক।


সাম্প্রতিক খবর

সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে রায়হান আহমদকে নৃশংসভাবে হত্যার প্রতিবাদে লণ্ডনে ভয়েস ফর জাস্টিস ইউকের মানব বন্ধন

photo কে এম আবুতাহের চৌধুরী : সিলেট শহরের বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়িতে রায়হান আহমদ নামক একজন যুবককে নৃশংসভাবে হত্যার প্রতিবাদে ভয়েস ফর জাস্টিস ইউকের উদ্যোগে ১৪ ই অক্টোবর বুধবার পূর্ব লণ্ডনের আলতাব আলী পার্কে এক মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয় ।সংগঠণের নেতা কে এম আবুতাহের চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও কমিউনিটি নেতা মোহাম্মদ শফিক খানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন -সাবেক ডেপুটি মেয়র

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment