আজ : ০৫:০৯, জুলাই ৫ , ২০২০, ২০ আষাঢ়, ১৪২৭
শিরোনাম :

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে অগ্রহণযোগ্য বক্তব্য ও তোষামোদকারীদের আস্ফালন


কে এম আবুতাহের চৌধুরী

আপডেট:০৭:০২, জুন ১১ , ২০২০
photo

বাংলাদেশ সরকারের বর্তমান পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড: এ কে মোমেন সম্প্রতি প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে যে সব কটুক্তি ওঅগ্রহণযোগ্য বক্তব্য রেখেছেন তার প্রতিবাদ করেছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ,সুশীল সমাজ,সাংবাদিক ও শ্রমজীবি মানুষ ।ইতালী ফেরত বাংলাদেশীদের প্রথমে ‘নবাবজাদা ‘ বলে সম্বোধন করেন ।পরে একসাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন যে -‘ লাখ লাখ প্রবাসী বাংলাদেশে এলে চুরি চামারী বেড়ে যাবে।দেশে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হবে ।দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের অগ্র যাত্রা ব্যাহত হবে।’ তিনি আরো বলেন -‘ এত প্রবাসী দেশেআসবেনা । তারা স্মার্ট ,তারা ম্যানেজ করে ফেলবে’।অর্থাৎ তিনি প্রবাসীদের দেশে যেতে নিরুৎসাহিত করেন ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রীর এ সব অন্যায় ও অগ্রহণযোগ্য বক্তব্য রাখার পর প্রতিবাদ ও বিক্ষোভে ফেটে পড়েন প্রবাসী বাংলাদেশীরা ।বিভিন্ন সোশিয়েল মিডিয়ায় তারা এর প্রতিবাদ জানাতে থাকেন ।প্রবাসীদের এ প্রতিবাদের মুখে খোদ পররাষ্ট্র মন্ত্রী একভিডিও বার্তায় তিনি এটাকে দুষ্ট লোকের কাজ বলে উল্লেখ করেন এবং প্রবাসীদের চোর বলেননি জানান ।কিন্তু তিনি তাঁরবক্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়ে প্রবাসীদের সন্তুষ্ঠ করতে পারেননি।

ইতিমধ্যেই পররাষ্ট্র মন্ত্রীর এসব লাগামহীন বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ থেকে লাইভ ভিডিও করেছেন জনপ্রিয়ব্যক্তিত্ব ব্যারিষ্টার সুমন।মন্ত্রীর এক কালের সহপাঠি ও বন্ধু ড: তাজ হাশমী পররাষ্ট্র মন্ত্রী বরাবরে খোলা চিঠি লিখেছেন ।যাবাংলাদেশের জনপ্রিয় দৈনিক মানব জমিনে প্রকাশিত হয়েছে ।ট্রাইবুনাল জাজ ব্যারিষ্টার নজরুল খসরু একটি তথ্যবহুলনিবন্ধ লিখেছেন ।বর্তমানে লকডাউন পরিস্থিতির কারনে বৃটেনের কিছু সংখ্যক কমিউনিটি ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দভারচুয়েল মিডিয়ার মাধ্যমে প্রতিবাদ সভা করে পররাষ্ট্র মন্ত্রীর বক্তব্যের গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রবাসীদের স্বার্থ রক্ষারআহ্বান জানিয়েছেন ।সোশিয়েল মিডিয়ায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনেক সৈনিককে পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড: এ কে মোমেনেরসমালোচনা ও পরামর্শ দিতে দেখেছি।

কিন্তু অত্যন্ত দু:খ ও পরিতাপের বিষয় যে - বৃটেনে কমিউনিটি ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ প্রতিবাদ জানানোর পর একশ্রেণীর স্বার্থান্বেষী ও সুযোগ সন্ধানী দালাল চরিত্রের লোক তেলে বেগুনে জ্বলে উঠেছে।তারা সুশীল সমাজের এ প্রতিবাদকেস্বাধীনতা বিরোধী,দেশ বিরোধী ,উন্নয়ন বিরোধী ও বিএনপি জামাত চক্রের কাজ বলে চিত্রায়িত করার চেষ্টা করে যাচ্ছে ।সরকারী রাজনৈনতিক দলের এক নেতা বিভিন্ন কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ও কাউন্সিলারদের। মিথ্যা কথা বলে আসল অপরাধলুকিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রীর পক্ষে বক্তব্য এনে মিডিয়ায় প্রচার করছে ।মন্ত্রীর এক ঘনিষ্ট আত্মীয় তার অন লাইন পোর্টালেপ্রতিবাদকারী কমিউনিটি নেতাদের বিরুদ্ধে ঢাহা মিথ্যা তথ্য দিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রীর পক্ষে সাফাই গেয়ে বাহবা পাওয়ার চেষ্টাকরে যাচ্ছে।

আমরা একটি গণতান্ত্রিক দেশে বসবাস করি ।প্রত্যেক মানুষেরই কথা বলার অধিকার রয়েছে ।যে কোন অন্যায় ও অশালীনকটুক্তির প্রতিবাদ করার এখতিয়ার রয়েছে ।কিন্তু এটা আমাদের বুঝতে কষ্ট হয় যে- একজন মন্ত্রীর প্রবাসী বাংলাদেশীদেরস্বার্থ বিরোধী বক্তব্যের প্রতিবাদ করা কিভাবে রাষ্ট্র বিরোধী বক্তব্য হয় ?

একটি গণতান্ত্রিক সমাজে যে কোন লোক সরকার ও মন্ত্রীদের কার্যকলাপের সমালোচনা করতে পারে ।সরকার এ আলোচনাও সমালোচনা থেকে সতর্ক হবে ,শিক্ষা গ্রহণ করবে ও রাষ্ট্র পরিচালনায় দক্ষতার স্বাক্ষর রাখবে।

সারা বিশ্বে এক কোটি ত্রিশ লাখ প্রবাসী রয়েছেন ।তাদের স্বার্থ রক্ষায় আমাদের সব সময় সোচ্চার থাকা উচিত ।এবারেরএই করোনা পরিস্থিতিতে বাংলাদেশে বেড়াতে গিয়ে অনেক প্রবাসী নাজেহাল হয়েছেন ।জরিমানা ও নির্যাতনের শিকারহয়েছেন ।প্রবাসীদের বাড়িতে লাল পতাকা টানানো হয়েছে ।বাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে ।রেস্টুরেন্টে প্রবেশ নিষেধ করা হয়েছে।বিনা চিকিৎসায় অনেকেই মৃত্যুবরণ করেছেন।অনেক প্রবাসী এখনো বাংলাদেশে আটকা পড়ে আছেন ।কিন্তু প্রবাসীদের এদুর্যোগে আমরা পররাষ্ট্র মন্ত্রী বা প্রবাস বিষয়ক মন্ত্রীরে কোন বক্তব্য রাখতে দেখিনি ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও প্রবাসী মন্ত্রী উভয়েই সিলেটের কৃতি সন্তান ।তাদের সকল ভাল কাজের প্রতি আমাদের সমর্থন রয়েছে ।কোন প্রবাসীই দেশের উন্নয়ন ও স্বাধীনতা বিরোধী নয় ।দেশের মাটি ও মানুষের জন্য প্রবাসীদের মন বেশী কাঁদে।দেশেরউন্নয়নে প্রবাসীদের অবদান অপরিসীম ।১৯৭১ সালের স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি দুর্যোগময় মুহুর্তে প্রবাসীবাংলাদেশীদের অবদান ইতিহাসের অন্তর্গত ।এবারের প্যানডেমিকে প্রবাসীরা কোটি কোটি টাকার সাহায্য সামগ্রীবাংলাদেশে পাঠিয়েছেন ।তা এখনো অব্যাহত রয়েছে ।

প্রবাসীরা মন্ত্রীদের যে কোন কাজের ব্যাপারে ভিন্নমত পোষন ও সমালোচনা করার অধিকার রাখেন।ড: এ কে মোমেনজাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি থাকা কালে তিনি বাংলা ভাষাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা হিসাবে স্বীকৃতিপ্রদানের ব্যাপারে উল্টা পাল্টা বক্তব্য রেখেছিলেন ।আমরা তার প্রতিবাদ জানিয়েছিলাম ।অথচ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনা এ দাবীর প্রতি পূর্ন সমর্থন জানিয়েছিলেন ।

বাংলাদেশ সরকারের সকল উন্নয়নমূলক ও ভাল কাজের প্রতি প্রবাসীদের সমর্থন ও সহযোগিতা রয়েছে ।আমরা কেউই দেশবিরোধী নই ।বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের আমরা অতন্দ্র প্রহরী ।

আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রী প্রবাসীদের খুশী করে সুন্দর একটা বক্তব্য দিলেই সব ভুল বুঝাবুঝি দূর হয়ে যায় ।আগামীতেলাগামহীন কোন কথা না বলে প্রবাসীদের স্বার্থে কথা বলবেন বলে আমরা আশা করি।সবাইকে এটা মনে রাখতে হবে যে - কারো ক্ষমতা চিরস্থায়ী নয় ।ক্ষমতার বাহাদুরী একদিন শেষ হয়ে যাবে।যারা প্রবাসী নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করেমন্ত্রীর দালালী করে স্বার্থ হাসিলের ধান্ধায় আছেন তারা একদিন ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হবে।আর যারা প্রবাসীবাংলাদেশীদের স্বার্থে কথা বলছেন তারা ১ কোটি ৩০ লাখ প্রবাসীর ভালবাসা নিয়ে ইতিহাসে অম্লান হয়ে বেঁচে থাকবেন ।



সাম্প্রতিক খবর

সুনামগঞ্জ জেলা ও উপজেলা সদরে বানের পানি, নৌকা ডুবিত নিহত ৩

photo মুহাম্মদ ফয়জুর রহমান : গত দু'তিন দিনের প্রবল বর্ষণ এবং সীমান্তের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে হাওর জনপদ সুনামগঞ্জ এখন বন্যার কবলে। সুনামগঞ্জ জেলা সদর এবং সীমান্তবর্তী উপজেলা তাহিরপুর ও বিশ্বম্ভপুর উপজেলা সদরে বানের পানি ঢুকে পড়েছে। সুনামগঞ্জ- তাহিরপুর এবং সুনামগঞ্জ-বিশ্বম্ভপুর সড়ক বানের পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় জেলা সদরের সাথে এ দু'টি উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment