আজ : ১০:২৪, মার্চ ২১ , ২০১৯, ৭ চৈত্র, ১৪২৫
শিরোনাম :

মির্জা আব্বাস দম্পতির আট সপ্তাহের জামিন


আপডেট:০৯:১১, জানুয়ারি ১৪ , ২০১৯
photo

ঢাকা সংবাদদাতা: জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও তার স্ত্রী মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাসকে আট সপ্তাহের আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। আসামিদের পক্ষে করা আবেদনের প্রেক্ষিতে সোমবার (১৪ জানুয়ারি) বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কুদ্দুস জামানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ জামিন আদেশ দেন।

আদালতে জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। এর আগে চলতি বছরের ৭ জানুয়ারি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস এবং তার স্ত্রী আফরোজা আব্বাসের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলা করে দুদক। দুদকের সহকারী পরিচালক মো. সালাহউদ্দিন শাহজাহানপুর থানায় এ মামলা করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, আফরোজা আব্বাসের নামে যে সম্পদের বর্ণনা পাওয়া গেছে তা আসলে তার স্বামী মির্জা আব্বাসের সহায়তায় অবৈধ উৎস থেকে অর্জিত সম্পদ। মির্জা আব্বাসের স্ত্রী আফরোজার নামে ২০ কোটি ৭৬ লাখ ৯২ হাজার ৩৬৩ টাকার অবৈধ সম্পদ পাওয়া গেছে। আয়কর নথিতে তিনি নিজেকে একজন হস্তশিল্প ব্যবসায়ী হিসাবে বর্ণনা করেছেন। কিন্তু পাসপোর্টের তথ্যে বলা হয়েছে তিনি একজন গৃহিণী। নিজের আয়ের কোনও বৈধ উৎস তার নেই।

মামলায় আফরোজা আব্বাস তার ‘অবৈধভাবে অর্জিত’ সম্পদ হস্তান্তর, রূপান্তর ও অবস্থান গোপন করে ‘অসৎ উদ্দেশ্যে’ দালিলিক প্রমাণবিহীন ‘ভুয়া’ ঋণ হিসেবে দেখিয়েছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

১৯৯১ সালের আগে মির্জা আব্বাসের উল্লেখযোগ্য কোনও আয় ছিল না। ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়র এবং গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী হওয়ার সুবাদে ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে মির্জা আব্বাস টাকার মালিক হন বলেও মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়।



সাম্প্রতিক খবর

পোস্ট-অপারেটিভে নিরবচ্ছিন্ন ঘুমে ওবায়দুল কাদেরের আরও ২২ ঘণ্টা

photo আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সিঙ্গাপুর মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল থেকে: বাইপাস সার্জারির পর সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হয়েছে। ৪৮ ঘণ্টা পার হলেই তাকে জাগানো হবে। এরই মধ্যে প্রায় ২৬ ঘন্টা পেরিয়ে গেছে। বর্তমানে তিনি পোস্ট অপারেটিভ কেয়ারে নিরবচ্ছিন্ন ঘুমে রয়েছেন। সিঙ্গাপুর মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসকরা ওবায়দুল

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment