আজ : ০৮:২৯, জুলাই ৬ , ২০২০, ২২ আষাঢ়, ১৪২৭
শিরোনাম :

আশ্রয়প্রার্থী ২ বাংলাদেশিকে আটকে রাখায় হাঙ্গেরি সরকারকে অর্থদণ্ড করেছে ইউরোপিয়ান কোর্ট


আপডেট:০৭:৩৪, মার্চ ১৬ , ২০১৭
photo

লন্ডনবিডিনিউজ২৪: বেআইনিভাবে দুই বাংলাদেশি আশ্রয়প্রার্থীকে আটকে রাখায় হাঙ্গেরি সরকারকে অর্থদণ্ড করেছে স্ট্রাসবার্গে অবস্থিত ইউরোপিয়ান কোর্ট অব হিউম্যান রাইটস। দুই বাংলাদেশির প্রত্যেককে ১০ হাজার ইউরো করে দিতে হাঙ্গেরির সরকারকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এর বাইরে খরচ বাবদ তাদের আরো ৮৭০৫ ইউরো করে দিতে বলা হয়েছে। তবে দুই বাংলাদেশিকে আটকে রাখার কারণে অর্থদণ্ডকে বিস্ময়কর বলে উল্লেখ করে হাঙ্গেরি। রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশি ইলিয়াস ও আলী আহমেদ হাঙ্গেরির সীমান্তবর্তী শহর রোজকে পৌঁছেন। সেখানে তাদেরকে বন্দি করে রাখা হয় তিন সপ্তাহ। ওই বছর হাঙ্গেরি সরকার দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় সীমান্তে বেড়া নির্মাণ করে। আশ্রয়প্রার্থীদের জন্য দুটি ট্রানজিট রুট সৃষ্টি করা হয়। উদ্দেশ্য ছিল বলকান অঞ্চল হয়ে সেখানে যাওয়া অভিবাসীর সংখ্যা কমিয়ে আনা। ওই ট্রানজিট ক্যাম্পে আটক রাখা হয় দুই বাংলাদেশিকে। তারা ওই বছর সেপ্টেম্বর মাসেই হাঙ্গেরি সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করেন। এতে তাদেরকে মুক্তি দেয়া ও সার্বিয়ায় ফেরত পাঠানো বন্ধ করার আবেদন জানানো হয়। সেই মামলায় মঙ্গলবার ইউরোপিয়ান কোর্ট অব হিউম্যান রাইটস রায় দিয়েছে।

রায়ে বলা হয়, দুই অভিবাসীকে ইউরোপিয়ান কনভেনশন অব হিউম্যান রাইটসের অধীনে ট্রানজিট জোনে আটক রাখা বেআইনি। আটক ওই দু’বাংলাদেশিকে বাইরের কারো সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ দেয়া হয়নি। এমনকি তাদের আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলার সুযোগও দেয়া হয়নি। তাদেরকে আশ্রয়ের জন্য প্রয়োজনীয় প্রক্রিয়া সম্পর্কেও পর্যাপ্ত তথ্য জানতে দেয়া হয়নি।



সাম্প্রতিক খবর

টাওয়ার হ্যামলেটসের মেয়র ও উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কেয়ারার্স এসোসিয়েশনের ভার্চুয়াল মিটিং অনুষ্ঠিত

photo লন্ডনবিডিনিউজ২৪ঃটাওয়ার হ্যামলেটস কেয়ারার্স এসোসিয়েশন গত ২রা জুলাই বৃহস্পতিবার কেয়ারারদের বিভিন্ন দাবি ও সমস্যা নিয়ে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের নির্বাহী মেয়র জন বিগস ও সংস্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে বিকেল ৬ টা থেকে ঘন্টা ব্যাপি এক ভার্চুয়াল মিটিং অনুষ্ঠিত হয় । টাওয়ার হ্যামলেটস কেয়ারার্স এসোসিয়েশনের আহ্বানে সাড়া দিয়ে মেয়র জন বিগস এই ভার্চুয়াল সভার

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment