আজ : ০৬:০৩, জুন ৪ , ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭
শিরোনাম :

প্রধানমন্ত্রী পদে উত্তরসূরি নির্বাচনের দিনক্ষণ নির্ধারণে সম্মত থেরেসা মে


আপডেট:০৯:১৪, মে ১৭ , ২০১৯
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে তাঁর পদে দলীয় উত্তরসূরি নির্বাচনের ব্যাপারে দিনক্ষণ নির্ধারণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার চুক্তি ব্রেক্সিট ইস্যুতে জুনের প্রথম সপ্তাহে চতুর্থবারের মতো পার্লামেন্টে ভোটের পর ওই দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হবে।

আজ শুক্রবার বিবিসিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে এ কথা জানা যায়।

বিবিসি জানায়, নিজ দল কনজারভেটিভ পার্টির জ্যেষ্ঠ সংসদ সদস্যদের সঙ্গে এক বৈঠকে থেরেসা মে ওই প্রতিশ্রুতি দেন। দলীয় নেতারা প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে যাওয়ার ব্যাপারে মের কাছে নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণের দাবি জানাচ্ছেন।

বিশেষ সূত্রের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, তিন-তিনবার হেরে যাওয়ার পর ব্রেক্সিট ইস্যুতে পার্লামেন্টের পরবর্তী ভোটেও হেরে গেলে মে পদত্যাগ করবেন।

এর আগেও গত বছর শেষের দিকে মের বিরুদ্ধে এক অনাস্থা ভোট অনুষ্ঠিত হয়। সেবারে বেঁচে যান তিনি। দলীয় বিধি অনুসারে চলতি বছরের ডিসেম্বরের আগ পর্যন্ত তাঁর বিরুদ্ধে আর অনাস্থা ভোট আনা যাবে না।

কিন্তু সে সময়ের আগেভাগে এবার গ্রীষ্মেই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ডাউনিং স্ট্রিট ছাড়ার জন্য মের ওপরে দলীয় চাপ বেড়ে চলেছে। ব্রেক্সিট নিয়ে অচলাবস্থা ও সম্প্রতি দেশব্যাপী স্থানীয় নির্বাচনে কনজারভেটিভ পার্টির হতাশাব্যঞ্জক ফলের জন্য মের ওপর পদত্যাগের চাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বিবিসির রাজনীতিবিষয়ক সম্পাদক লরা কুন্সবার্গ কনজারভেটিভ পার্টির জ্যেষ্ঠ নেতাদের বরাত দিয়ে জানান, চতুর্থবারের মতো ব্রেক্সিট ইস্যুতে প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পরও থেরেসা মের প্রধানমন্ত্রী পদে থাকার কথা ভাবা যায় না।



সাম্প্রতিক খবর

প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ ও নিন্দা : প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদানের সিদ্ধান্ত

লন্ডনবিড়িনিউজ২৪ঃবিশেষ প্রতিনিধি: গত ৩১শে মে রবিবার ভারচুয়াল মিডিয়া ঝুমের মাধ্যমে লণ্ডনে অনুষ্ঠিত সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দের এক জরুরী প্রতিবাদ সভায় সম্প্রতি প্রবাসী বাংলাদেশী সম্পর্কে বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রীর অশালীন মন্তব্য করার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয় ।সভায় বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী বরাবরে একটি প্রতিবাদ লিপি প্রেরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিশিষ্ট

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment