আজ : ০৫:১৮, এপ্রিল ২৫ , ২০১৯, ১২ বৈশাখ, ১৪২৬
শিরোনাম :

বিশ্বজুড়ে বর্ণবাদী মতাদর্শের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ডাক নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর


আপডেট:১০:৩৪, মার্চ ২০ , ২০১৯
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ডানপন্থী বর্ণবাদী মতাদর্শকে নির্মূল করতে আন্তর্জাতিকভাবে লড়াইয়ের ডাক দিয়েছেন নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন। ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে বন্দুকধারীর হামলার প্রেক্ষাপটে বিশ্ববাসীর প্রতি এ আহ্বান জানান তিনি।

১৫ মার্চ (শুক্রবার) ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারান্ট নামের সন্দেহভাজন হামলাকারীর লক্ষ্যবস্তু হয় নিউ জিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুইটি মসজিদ। শহরের হাগলি পার্কমুখী সড়ক ডিনস এভিনিউয়ের আল নুর মসজিদসহ লিনউডের আরেকটি মসজিদে তার তাণ্ডবের বলি হয় অর্ধশত মানুষ। ট্যারান্ট তার হামলার দৃশ্য ফেসবুকে লাইভ স্ট্রিমিং করে। স্বয়ংক্রিয় বন্দুক হাতে হামলাকারীর এগিয়ে যাওয়া, মসজিদের প্রবেশকক্ষ থেকে বিভিন্ন কক্ষে নির্বিচারি গুলি বর্ষণ আর রক্তাক্ত নৃশংস পরিস্থিতির ভিডিও মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে।

ক্রাইস্টচার্চ হামলার পর প্রথমবারের মতো ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন আরডার্ন। বিবিসির পক্ষ থেকে তার কাছে উগ্র ডানপন্থী জাতীয়তাবাদের উত্থান সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। জবাবে আরডার্ন বলেন, ‘সে (ক্রাইস্টচার্চের হামলাকারী) অস্ট্রেলীয় নাগরিক ছিল। এর মানে এ নয় যে নিউ জিল্যান্ডে এ মতাদর্শের মানুষ নেই। তবে নিউ জিল্যান্ডের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ একে ঘৃণা করে।’

জাসিন্ডা আরডার্ন মনে করেন, ডানপন্থী জাতীয়তাবাদী মতাদর্শের অস্তিত্ব খুঁজে বের করে একে নির্মূল করতে হবে। পাশাপাশি এ ধরনের মতাদর্শের উত্থানের পরিবেশ যেন সৃষ্টি না হয়, তা নিশ্চিত করতে হবে।

বিশ্বকে ডানপন্থী বর্ণবাদী মতাদর্শের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের আহ্বান জানিয়ে জাসিন্ডা বলেন, ‘অন্য কোথাও বড় হয়ে ওঠা ও সেখানকার মতাদর্শকে ধারণকারী ব্যক্তির সহিংস কর্মকাণ্ডের বলি হয়েছে নিউ জিল্যান্ড। আমরা যদি আন্তর্জাতিকভাবে নিরাপদ, সহিষ্ণু ও সম্মিলিত জগত নিশ্চিত করতে চাই, তবে সীমানার মধ্যে আটকে থেকে তা চিন্তা করা যাবে না।’

এর আগে মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) পার্লামেন্টের বিশেষ অধিবেশনে দেওয়া ভাষণে জাসিন্ডা আরডার্ন ক্রাইস্টচার্চ হামলাকারীর নাম মুখে না নেওয়ার শপথ নেন। বলেন,‘সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সংঘটনের মধ্য দিয়ে সে অনেক কিছু চেয়েছে। এর একটি হলো নিজের অপকর্মের প্রচার চাওয়া। সেকারণে আপনারা আমার মুখে কখনও তার নাম শুনবেন না।’

অন্যদেরকেও হামলাকারীর নাম মুখে না আনার অনুরোধ জানান জাসিন্ডা। বলেন,‘আমি আপনাদেরকে অনুরোধ করছি: যে ব্যক্তি অন্যদের জীবন কেড়ে নিয়েছে তার নাম না নিয়ে যারা জীবন হারিয়েছে তাদের নাম নিন।’

উল্লেখ্য,মসজিদে হামলার আগে অনলাইনে ১৬ হাজার ৫০০ শব্দের একটি ইশতেহারে নৃশংস এ হামলার পেছনে নিজের বক্তব্য তুলে ধরে সন্দেহভাজন হামলাকারী ব্রেন্টন ট্যারান্ট। সেখানে মোটা দাগে উঠে আসে মুসলিমবিদ্বেষ, অভিবাসী বিদ্বেষ ও শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের মতো বিষয়গুলো। মুসলমানদের উসমানীয় খিলাফতের (বর্তমান তুরস্ক) বিরুদ্ধে তৎকালীন ইউরোপীয় খ্রিস্টানদের বিজয়ের কথাও উল্লেখ করেছে সে। বর্তমান তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ানের মৃত্যুও কামনা করে হামলাকারী।



সাম্প্রতিক খবর

শ্রীলঙ্কার হামলা নিয়ে জাসিন্ডার সংবাদ সম্মেলন

photo আন্তর্জাতিক ডেস্ক : শ্রীলঙ্কায় ইস্টার সানডেতে বিস্ফোরণ ঘটানো নিউ জিল্যান্ডের মসজিদে হামলার প্রতিশোধ কিনা তা নিয়ে কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডার্ন। বুধবার অকল্যান্ডে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, তারা এমন কোনও গোয়েন্দা তথ্য পাননি, যেখানে বোঝা যায় যে ক্রাইস্টচার্চে হামলার প্রতিশোধে নিতেই ওই হামলা চালানো হয়েছে। ১৫ মার্চ (শুক্রবার)

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment