আজ : ১২:৪৪, সেপ্টেম্বর ১৯ , ২০১৮, ৪ আশ্বিন, ১৪২৫
শিরোনাম :

ছেলেসহ আবার কারাগারে রাগীব আলী


আপডেট:১০:৪১, সেপ্টেম্বর ১২ , ২০১৮
photo

সিলেট প্রতিনিধি: ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতির মামলায় ১৪ বছর কারাদণ্ড পাওয়া সিলেটের ব্যবসায়ী রাগীব আলী ও তার ছেলে আবদুল হাইয়ের জামিন নাকচ করে তাদের কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।সিলেটের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক মোস্তাইন বিল্লাহ বুধবার এ আদেশ দেন বলে এপিপি সৈয়দ শামীম আহমদ জানান।

তারাপুর চা বাগানের জমি বন্দোবস্ত নিয়ে ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতির মামলায় সিলেটের মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত গত বছরের ২ ফেব্রুয়ারি রাগীব আলী ও তার ছেলকে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দেয়।ওই রায়ের বিরুদ্ধে রাগীব আলী ও তার ছেলে আপিল করলেও সিলেটের বিশেষ দায়রা জজ আদালতের বিচারক দিলিপ কুমার ভৌমিক গত ৯ অগাস্ট সাজা বহাল রাখেন।

সেই সঙ্গে উচ্চ আদালত থেকে জামিন পাওয়া রাগীব আলী ও তার ছেলে আব্দুল হাইকে ১৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণে নির্দেশ দেন বিচারক।এপিপি শামীম আহমদ জানান, নির্ধরিত সময়ের আগেই বুধবার আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেছিলেন দুই আসামি। কিন্তু বিচারক তা নকচ করে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

১৯৯০ সালে ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক জালিয়াতি করে প্রতারণার মাধ্যমে ভুয়া সেবায়েত সাজিয়ে তারাপুর চা-বাগানের ৪২২ দশমিক ৯৬ একর দেবোত্তর সম্পত্তি রাগীব আলী দখল করেন বলে অভিযোগ ওঠে।২০০৫ সালে ভূমি মন্ত্রণালয়ের স্মারক (চিঠি) জালিয়াতি এবং সরকারের এক হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে কোতোয়ালি থানায় দুটি মামলা করেন সিলেট সদরের তৎকালীন ভূমি কমিশনার এসএম আব্দুল কাদের।

মামলা হওয়ার ১১ বছর পর সিলেটে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) অতিরিক্ত সুপার সারোয়ার জাহান ২০১৬ সালের ১০ জুলাই দুই মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র দেন।স্মারক জালিয়াতি ছাড়াও প্রতারণার মাধ্যমে ভূমি আত্মসাতের অপর মামলায় গত বছরের ৬ এপ্রিল রাগীব আলীর ১৪ ও তার ছেলে আব্দুল হাইয়ের ১৬ বছরের সাজা হয়।

Posted in সিলেট


সাম্প্রতিক খবর

কেউ বলতে পারবে না কারো গলা টিপে ধরেছি: প্রধানমন্ত্রী

photo ঢাকা সংবাদদাতা: কথা বলার স্বাধীনতা সবারই আছে। সংবাদপত্র, সাংবাদিকদের স্বাধীনতার কথা আমরা সব সময় বিশ্বাস করি। এটা কেউ বলতে পারবে না যে কারো গলা টিপে ধরেছি, কারো মুখ টিপে ধরেছি অথবা কাউকে বাধা দিয়েছি- দেইনি, দেই না। বরং সাংবাদিকদের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য যা যা করা দরকার আমরা করেছি। বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে অসুস্থ, অসচ্ছল ও দুর্ঘটনাজনিত আহত সাংবাদিক ও নিহত

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment