আজ : ০৪:২৮, ডিসেম্বর ১২ , ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬
শিরোনাম :

ট্রাম্পের মেক্সিকো সীমান্ত বন্ধের ক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন খোদ যুক্তরাষ্ট্রেই


আপডেট:০৫:০৬, মার্চ ৩০ , ২০১৯
photo

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মেক্সিকোর সঙ্গে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার ব্যাপারে ট্রাম্পের তোড়জোড় নতুন নয়। সম্প্রতি নতুন করে তিনি আগামী সপ্তাহেই এ সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন। তার এ হুমকির পর এখন খোদ যুক্তরাষ্ট্রেই ট্রাম্পের মেক্সিকো সীমান্ত বন্ধের ক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব ও অভিবাসন কর্তৃপক্ষের সাবেক প্রধান উপদেষ্টা স্টিফেন লেগোমস্কি। তার ভাষায়, ‘কোনও একটি স্থলবন্দর বন্ধ করে দেওয়ার ক্ষমতা প্রেসিডেন্টের আছে। কিন্তু মেক্সিকোর সঙ্গে পুরো সীমান্ত যদি তিনি বন্ধ করে দিতে চান তাহলে তা আইনি চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে পারে।’

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ট্রাম্পের হুমকিকে হালকাভাবে নিয়েছেন মেক্সিকোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা মনে করেন, মেক্সিকো সীমান্ত বন্ধের চিন্তা করা আর শরীর একে অপরের সঙ্গে যুক্ত এমন যমজ শিশুদের আলাদা করার কথা ভাবা একই রকম বিষয়।

ট্রাম্প আগেও বহুবার মেক্সিকোর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। কিন্তু এবার দেশটি মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে ঢোকা অভিবাসী হতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের চাপে হিমশিম খাচ্ছে। ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটি সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, মেক্সিকো সীমান্ত অতিক্রম করতে মার্কিন নাগরিকদের এখন থেকে অনেক বেশি সময় লাগবে। কারণ সেখানে ৭৫০ জন এজেন্ট নিয়োগ করা হয়েছে অভিবাসী হতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের কাগজপত্র পরীক্ষার জন্য।

হোমল্যান্ড সিকিউরিটি মন্ত্রী ক্রিস্টজেন নেইলসেনসহ আরও অনেক মার্কিন কর্মকর্তা বলেছেন, সম্প্রতি মেক্সিকো সীমান্ত দিয়ে অভিবাসী হতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের ব্যক্তিদের যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্তে উপস্থিত হতে চাওয়ার সংখ্যা বহু বেড়ে গেছে। এদের একটা বড় অংশই নারী ও শিশু। মধ্য আমেরিকার দেশগুলোতে হওয়া সহিংসতা ও দারিদ্র্যের হাত থেকে বাঁচতে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে তারা সেখানে উপস্থিত হয়েছে। এল সালভাদর, হন্ডুরাস ও গুয়েতেমালা থেকেই মূলত এদের আগমন।

এমন প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মেক্সিকোর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত বন্ধ করার হুমকি দিয়েছিলেন ফ্লোরিডা সফরে গিয়ে। সেখানে ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘আমরা দীর্ঘ সময়ের জন্য সীমান্ত বন্ধ করে দেবো। আমি কোনও খেলা খেলছি না। মেক্সিকোকে এটা বন্ধ করতে হবে।’ তিনি সব ধরনের পণ্যের জন্য সীমান্ত বন্ধ করে দেবেন কি না জানতে চাইলে ট্রাম্প বলেছিলেন, ‘সব পণ্যের জন্যই সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।’ তিনি মনে করেন, অভিবাসী হতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের অবৈধভাবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবেশ বন্ধে মেক্সিকো কার্যকর কোনও ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না।

ট্রাম্পের এই মন্তব্যের বিষয়ে খুব একটা জোরালো জবাব দেয়নি মেক্সিকো। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মারসেলো এবরার্ড টুইটারে লিখেছেন, ‘মেক্সিকো কোনও হুমকির ভিত্তিতে সীমান্ত বন্ধ করে দেবে না। আমরা দুই ঘনিষ্ঠ প্রতিবেশী।’ মেক্সিকোর তিজুয়ানাভিত্তিক ব্যবসায়ী গোষ্ঠী সিসিইর প্রধান কার্ট হোনোল্ড ট্রাম্পের হুমকির বিষয়ে বলেছেন, ‘এতে হাজার হাজার কোটি ডলারের ক্ষতি হবে। তিনি আসলেই বুঝতে পারছেন না, তিনি কী বলছেন।’

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সীমান্ত বন্ধ করে দিলে শুধু মেক্সিকো নয়, সীমান্তের অপর পাশে থাকা মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলোও বিপদে পড়বে। গাড়ি ও ওষুধ শিল্পের সঙ্গে জড়িত প্রতিষ্ঠানগুলো আন্তর্জাতিক সাপ্লাই চেইনের ওপর ভিত্তি করে কাজ করে। সীমান্ত বন্ধ হয়ে গেলে সবার ওপরই তার প্রভাব পড়বে। সংশ্লিষ্ট একটি প্রতিষ্ঠান টেকমা গ্রুপ। এর চিফ এক্সিকিউটিভ অ্যালান রাসেল বলেছেন, ‘শরীর পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত থাকা যমজ শিশুদের মতো আমরা একে অপরের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছি।’

রয়টার্স লিখেছে, এটা স্পষ্ট নয় যে, সীমান্ত বন্ধ করে দিলে তা কীভাবে অভিবাসী হতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের প্রবেশ ঠেকাতে সমর্থ হবে। কারণ আইনত যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে উপস্থিত হওয়ার সূত্রেই তারা আশ্রয়ের আবেদন করতে পারে। অন্যদিকে সীমান্ত বন্ধ করে দিলে তা যেমন ক্ষতিগ্রস্ত করবে পর্যটন শিল্পকে, তেমনি বাধাগ্রস্ত হবে বাণিজ্য। যেসব দেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বৈদেশিক বাণিজ্য হয়, বাণিজ্যের আকারের দিক থেকে তাদের মধ্যে মেক্সিকোর অবস্থান তৃতীয়। দুই দেশের মধ্যে ২০১৮ সালে বাণিজ্য হয়েছে ৬১ হাজার ২০০ কোটি ডলারের।



সাম্প্রতিক খবর

সাউন্ডটেক ক্যারাম ক্লাব ইউকে’র পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

photo লন্ডনবিডিনিউজ২৪ঃ গত ৫ ডিসেম্বর বৃহস্প্রতিবার সন্ধ্যায় পূর্ব লন্ডনে সাউন্ডটেক ক্যারাম ক্লাব ইউকে’র স্থায়ী কার্যালয়ে বরাবরের মতো এবার বিপুল সংখক দর্শকদের উপস্থিতিতে ব্রিটেনের জনপ্রিয় ও প্রাচীন ক্যারাম ক্লাব “সাউন্ডটেক ক্যারাম ক্লাব ইউকে’র ডাবুল চ্যাম্পিয়ন ট্রপি ২০১৯” এর ফাইনাল খেলা ও পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্টান অনুষ্ঠিত হয় l অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট কমিনিটি

বিস্তারিত

0 Comments

Add new comment